আজ সোমবার| ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ ইং| ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ সোমবার | ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

নড়িয়া কেদারপুর পদ্মায় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে  আতঙ্কে রয়েছে ১৫ টি পরিবার

রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ | 339 বার

নড়িয়া কেদারপুর পদ্মায় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে  আতঙ্কে  রয়েছে ১৫ টি পরিবার

নড়িয়া কেদারপুর পদ্মায় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে  আতঙ্ক রয়েছে ১৫ টি পরিবার

মনির আহমদ (নড়িয়া উপজেলা প্রতিনিধি, শরীয়তপুর)

 শরীয়তপুর নড়িয়া উপজেলা পশ্চিম পাঁচগাঁও আবারও ভাঙন দেখা দিয়েছে।
এতে করে প্রায় ১৫টি পরিবার বসতবাড়ি হারানোর পাশাপাশি আতংকে রয়েছে আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দারা।
ভাঙনরোধে সর্বাত্মক কাজ করে যাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড, শরীয়তপুর।
নড়িয়া- জাজিরায় ১০০৭৭কোটি ৫৮লক্ষ টাকা ব্যয়ে চলমান পদ্মা নদীর ডানতীর রক্ষা প্রকল্পের কাজে এই বছর কোথাও কোনরকম বড় ধরনের সমস্যা না দেখা দিলেও নদীর পানি কমতে থাকায় হঠাৎ এই স্থানে (টাকমার্কেট) ভাঙন দেখা দিয়েছে।

স্থানীয়দের থেকে জানা যায়, গত ১২ সেপ্টেম্বর সকালে এখানে ফাটল দেখা দিলে তাৎক্ষণিকভাবে ভাঙনরোধে পদক্ষেপ নেন পানি উন্নয়ন বোর্ড ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বেঙ্গল গ্রুপ।
এখনো কাজ চলমান আছে।

ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত চুন্নু মাদবর বলেন, “পদ্মায় শেষপর্যন্ত আমাদের ছাড়লো না, নদীর পাড়ে যতটুকু জায়গা অবশিষ্ট ছিল তাও এবার চলে যাচ্ছে।

অটোচালক আলেক মাদবর বলেন, “আমরা তো নিঃস্ব হয়ে গেলাম মন্ত্রী মহোদয় যেন আমাদের একটা ব্যবস্থা করেন, আমরা এখন কোথায় যাবো কী করবো কিচ্ছু জানি না।”

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) হাফেজ সানাউল্লাহ্ বলেন, “ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে আমরা আছি, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় উপমন্ত্রী আমাদের সাথে আছেন, সবসময় খোঁজখবর নিচ্ছেন। ভাঙনের একটি সমাধান শীঘ্রই হবে ইনশাআল্লাহ্।”

জেলার পানি উন্নয়ন বোর্ড-এর উপসহকারী প্রকৌশলী ইকবাল আক্তার বলেন,
“১২ সেপ্টেম্বর সকালে এখানে ফাটল দেখা দিলে
পানি উন্নয়ন বোর্ড তাৎক্ষণিকভাবে ভাঙনরোধে পদক্ষেপ নেয়।
দিনে-রাতে এখানে ৪০টিরও অধিক জাহাজ দিয়ে জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে, ১৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এখানে
৭১ হাজার ৫৩৮ টি জিও ব্যাগ ডাম্পিং হয়েছে।
প্রতিনিয়ত ডুবুরি দ্বারা নদীর তলদেশ পরীক্ষা করা হচ্ছে। ভাঙন নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে আমরা আশাবাদী।

It's only fair to share...Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

সর্বশেষ সংবাদ
ফেইসবুক পাতা