আজ শুক্রবার| ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং| ২৬শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ শুক্রবার | ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং

ভোজেশ্বর বাজারে ভারসাম্যহীন প্রসূতি পাগলীর জীবন বাঁচালেন নড়িয়া থানা এসআই আজাদ

রবিবার, ১৭ মে ২০২০ | ৯:৫৫ পূর্বাহ্ণ | 628 বার

ভোজেশ্বর বাজারে ভারসাম্যহীন প্রসূতি পাগলীর জীবন বাঁচালেন নড়িয়া থানা এসআই আজাদ

ভোজেশ্বর বাজারে ভারসাম্যহীন প্রসূতি পাগলীর জীবন বাঁচালেন নড়িয়া থানা এসআই আজাদ

 

 

শরীয়তপুর নড়িয়া উপজেলার এস আই মোঃ আবুল কালাম আজাদ করোনার প্রাদুর্ভাবে মানুষ যখন লকডাউনে ঘরবন্দী ঠিক সেই সময়ই মানবিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলেন ,তার, তার সহযোগিতার কারনে ভোজেশ্বর বাজারে এক ভারসাম্যহীন পথ নারীর কন্যা শিশুর জন্ম হয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় কৌতুহল বিরাজ করছে। স্থানীয় জনগণ বলেন ভারসাম্যহীনতার সাথে পাশবিক নির্যাতন কি করে করতে পারে এরা কি মানুষ।,১৬ই মে ২০২০ সন্ধ্যা ৭টা৩০মিঃ ভোজেশ্বর বাজার থেকে ফাড়ী ইনচার্জ মোঃ আবুল কালাম আজাদের  নিকট একটি ফোন আসে ভোজেশ্বর বাজার একটি ভ্যানের নিচে প্রসব বেদনা কাতরাতে থাকে পরিচয়বিহীন ভারসাম্যহীন এক পথ নারী, তিনি স্থানীয় ব্যবসায়ী ও ঠিকাদার মোঃ কবির ঢালীর সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে ভোজেশ্বর বাজার মাতৃসদন ক্লিনিকে নিয়ে আসেন। এ বিষয়ে নড়িয়া থানা এসআই আবুল কালাম আজাদ বলেন গতকাল সন্ধ্যায় ভোজেশ্বর বাজার খান ফার্মেসী হতে একটি ফোন আসে ফার্মেসীর কর্মচারী বিশ্বজিৎ বলেন ভ্যানের নিচে একটি পাগলি প্রসব বেদনায় কাতরাচ্ছে, এ কথা শোনার পরে ভোজেশ্বর ফাড়ী থেকে ছুটে যাই সেখানে ফাঁড়ি পুলিশ স্থানীয় লোকজন নিয়ে ভারসাম্যহীন পাগলিকে উদ্ধার করে সেভ ডেলিভারি সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়,সেখানে ডাক্তার তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে রাত এগারোটায় রেফার করেন।  বাজারে স্থানীয় দোকানদার ও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের পরিচালক মোহাম্মদ কবির ঢালী বলেন দীর্ঘদিন যাবৎ এ ভারসাম্যহীন পাগলী ভোজেশ্বর নদীর পাড় রোডে গুদারাঘাটের আশেপাশে থাকতেন তিনি তিনি কোনো কথা বলতে পারতেন না মানসিক ভারসাম্য ছিলেন করণায় লক ডাউন এর কারণে বাজারের দোকানপাট বন্ধ থাকায় খাবার-দাবারে কষ্ট হতো প্রায় রাস্তার পাশে পড়ে থাকতে দেখতাম। কারা এ ধরনের জঘন্য কাজ করেছে আমাদের জানা নেই, আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই একজন ভারসাম্যহীনতার সাথে কি করে এরকম কাজ করতে পারে তারা কি মানুষ না জানোয়ার। শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত  নার্স সাদিয়া বলেন রাত বারোটার দিকে একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তান জন্ম নেয় তারা মা এবং মেয়ে দুজনই সুস্থ আছেন ।কিন্তু ভারসাম্যহীন হওয়ার কারণে তিনি বারবারই হসপিটাল থেকে পালানোর চেষ্টা করছেন এ নিয়ে আমরা খুব বিপদে পড়েছি। এ বিষয়ে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের ইনচার্জ ডাঃ মনির আহমেদ খান সাংবাদিকদের বলেন গতরাতে একজন ভারসাম্যহীন প্রথম নারীকে প্রসব বেদনা অবস্থায় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে ভর্তি করানো হয় রাত  বারোটার দিকে তার একটি কন্যা শিশুর জন্ম হয়। মা এবং মেয়ে উভয়েই সুস্থ আছে। তবে পথ নারী হওয়ার কারণে অযত্ন-অবহেলায় হয়তো খাবারের অভাবে শরীর প্রচুর দুর্বল তিনি কয়েকবার পালানোর চেষ্টা করেছিলেন তাই আমরা খুব টেনশনে আছি হয়তো বাচ্চা কাউকে দপ্তক দেয়া হবে এ বিষয়টি সদর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ও সমাজ সেবার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

It's only fair to share...Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

সর্বশেষ সংবাদ
ফেইসবুক পাতা