আজ শুক্রবার| ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং| ২৬শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ শুক্রবার | ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং

শরীয়তপুর নড়িয়া ভুমখাড়া ইউনিয়নে আরো ৩ জন করোনা রোগী এনিয়ে সনাক্ত১৪জন

শনিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২০ | ১১:৩৮ পূর্বাহ্ণ | 238 বার

শরীয়তপুর নড়িয়া ভুমখাড়া ইউনিয়নে আরো ৩ জন করোনা রোগী এনিয়ে সনাক্ত১৪জন

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভুমখাড়া ইউনিয়ন এলাকায় আরো ৩ জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের বয়স( ৫৬) একজনের বয়স (৪০) ও অন্যজনের বয়স (৩৮)। এদের বাড়ি ভুমখাড়া ইউনিয়নের ১নংওয়ার্ড, ৮নং ওয়ার্ড ও ৯ নং ওয়ার্ডে। এরা তিন জনই ঢাকার বাবুবাজার ও মৌলভী বাজারে চালের আড়তে কাজ করতেন।গত ১৭ এপ্রিল ১৮ এপ্রিল ও ১৯ এপ্রিল এরা পর্যায়ক্রমে বাড়ি আসে। খবর পেয়ে নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ গত ২১ এপ্রিল তাদের বাড়ি গিয়ে প্রত্যেক কে হোমকোয়ারেন্টাইনে রেখে নমূনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠায়।গত ২৪ এপ্রিল রাত অনুমান দেড়টায় ঢাকা থেকে রিপোর্ট আসে ঐ তিনজন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে। তবে তাদের শরীরে এখনো কোন উপসর্গ দেখা দেয়নি।স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষথেকে তদেরকে হোম আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। আশে পাশের বাড়ি ঘর লকডাউন করে দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে নড়িয়া উপজেলায় ৫জন করোনা রোগী সনাক্ত হলো। জেলায় মোট সনাক্ত হলো ১৩জন।এরমধ্যে একজন মারাগেছে।এ ব্যাপারে নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ শফিকুল ইসলাম রাজিব বলেন, নড়িয়া উপজেলার ভুমখাড়া ইউনিয়নে আরো ৩জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে। তারা তিনজনই ঢাকায় চালের আড়তে কাজ করতেন। তাদের কে হোমআইসোলেশনে রাখা হয়েছে। সেখানে নিবিড় পর্যবেক্ষনের মাধ্যমে চিকিৎসা ব্যবস্থা করা হয়েছে। আশে পাশের কিছু বাড়ি ঘর লকডাউন করা হয়েছে।
নড়িয়া থানার ওসি মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন, ভুমখাড়া এলাকায় ৩জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে। তাদের বাড়ির আশে পাশের বাড়িগুলো লকডাউন করে দেয়া হয়েছে।যাতে তাদের দ্বারা অন্যকেউ আক্রান্ত না হয়।গতরাতে প্রাপ্ত ৭৫টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলের মধ্যে ৩টি পজিটিভ পাওয়া যায়। এ নিয়ে বর্তমানে নড়িয়া উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫ জন এবং জেলায় সর্বমোট ১৪ জন।এছাড়া জেলায় এ পর্যন্ত প্রাপ্ত ২৯৩টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলের মধ্যে ২৮০টি নেগেটিভ ও ১৩টি পজিটিভ এসেছে।নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম জানান, নতুন আক্রান্তদের বাড়ি ভাড়া ইউনিয়নে। নতুন শনাক্ত এই তিনজন গত ১৭, ১৮ ও ১৯ এপ্রিল পুরান ঢাকা থেকে এলাকায় ফেরত আসেন। তবে তাদের শরীরে কোনও করেনা উপসর্গ ছিল না। তবুও আক্রান্ত এলাকা থেকে আসছে বিধায় নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য আইইডিসিআরে পাঠিয়েছিলাম, গত রাতে তাদের নমুনার ফলাফল করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। এরা সবাই নিজ নিজ বাড়িতে হোম আইসোলেশনে থাকবেন, আমাদের স্বাস্থ্য বিভাগের ডাক্তাররা বাড়িতে গিয়ে তাদেরকে চিকিৎসা সেবা দিবে।তিনি আরও বলেন, করোনা শনাক্ত হওয়া ওই ব্যক্তিদের বাড়িসহ আশপাশের কয়েকটি বাড়ির লোকজনকে নিবিড় পর্যবেক্ষণের রাখার কার্যক্রম শুরু করেছি। এখনো শেষ হয়নি তারা কোথায় কোথায় গিয়েছেন সেসব আইডেন্টিফাই করতে সময় লাগবে।

It's only fair to share...Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

সর্বশেষ সংবাদ
ফেইসবুক পাতা